প্রশ্নবোধকে বিদায় কিংবা ভয়!

0 comment 64 views

যাচ্ছে কেটে বছর, মাস, দিন, মিনিট, সেকেন্ড বিরামহীন- নদীর প্রহমান স্রোতের মতোই। কেটে যায় জীবনের নানান ব্যস্ততায়। এরই ফাঁকে মাঝে মাঝে মূল্যায়ন ভাবনাটিও আসে। আসে আত্মসচেতনার চিন্তা। আত্মসচেতনতা মানে তো নিজের গুরুত্বকে প্রধান্য দেওয়া। তখন ভাবি, আত্মসচেতন হতে গিয়ে আত্মকেন্দ্রিক হয়ে পড়ছি নাতো! নিজের ভালো আর মন্দ গুণ বা দোষ সম্পর্কে সজাগ আছি তো? যা যা করেছি, যা করছি কিংবা যেসব করব বলে ঠিক করছি- সেসব সিদ্ধান্তগুলো সঠিক আছে তো?

এসব ভাবনা মাঝে মাঝে খুব ভয় ধরিয়ে দেয়। পৃথিবীতে কেউ তো চিরস্থায়ী নয়। চলে যেতে হয় সকলকেই। আমাকে যেন কোনো প্রশ্ন হয়ে পৃথিবী থেকে যেন যেতে না হয়- এই হলো ভয়।

সচেতন মননশীলতার অধিকারী মানুষ সকলেই নন বটে কিন্তু দেশ ও সমাজে অতি অল্পই আছেন। তারাই এগিয়ে নিয়ে চলেন সমাজ, রাষ্ট্র আর দেশকে। দুঃখজনক হলো তারা রাষ্ট্র পরিচালনায় তাদের সংখ্যা বড় কম- নেই বললেই চলে। সেকারণে অল্পসংখ্যক লোকের এগিয়ে যাওয়াকে একটি রাষ্ট্রের এগিয়ে যাওয়া বললে ভুল হবে। মোট জনগোষ্ঠী এগিয়ে গেলে তবেই দেশ এগিয়ে যায়। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে অনেক বড় মানুষ হতে হয়। ক্ষমতা থাকতে হয়। আমি খুব ছোট মানুষ। আমি শুধু কোনো প্রশ্নবোধক হয়ে যেতে চাই না।

Leave a Comment

You may also like

Copyright @2023 – All Right Reserved by Shah’s Writing